বাল্য মা – অনামিকা জাহান

Home/কবিতা/বাল্য মা – অনামিকা জাহান

বাল্য মা – অনামিকা জাহান

মা না হলে মায়ের বেদন যায় কি ওরে বোঝা
মা হওয়াটা এই ধরাতে নয়তো ওরে সোজা।

দুই মাসেতে রক্ত বমি প্রাণ বুঝি যায় উড়ে,
খানা পিনার নাইতো খবর হয় যে ভবঘুরে।

ভাতের গন্ধে নাক ছিটকায় মাছ মনে হয় কাঁচা,
বাল্য বউটা মা হলে আর হয়না রে তার বাঁচা।

ছয় মাসেতেই হুড়োহুড়ি লাথি মারে পেটে,
অস্থিরতা অস্বস্তিতে দম বুঝি যায় ফেঁটে

নয় মাসেতে পেটটা হলো ইট পাথরের বোঝা,
ক্ষণে ক্ষণে মৃদু ব্যথা দেয় যে চরম সাজা।

দশ মাসেতে প্রসব ব্যথা লজ্জাস্থান ছিঁড়ে,
নবজাতক পুঁচকে সোনা আলোক দিলো ঘরে।

প্রসব রক্তে হৃদয় রক্তে অঝর চোখদুটি,
নতুন প্রাণ জন্ম দিয়ে বাল্য মায়ের হলো ছুটি।

মা না শুনেই দম ফুরালো মিটলোনা আর আশ,
পুঁচকে সোনার সাথে তার হোলোনা সুখের বাস।

বাল্য মা আজ হয়ে গেলো চার কাঁধেরই বোঝা,
এই ধরাতে মা হওয়াটা অতই কি রে সোজা!

By | 2018-06-15T08:15:50+00:00 June 15th, 2018|কবিতা|1 Comment

About the Author:

One Comment

  1. Rsr Hridoy June 15, 2018 at 7:53 pm - Reply

    মোর সর্গ তোমার পদতলে
    ঐ কোরআন হাদীস বলে,
    তোমার সর্গ অপেক্ষায় মা
    তুমি নির্ভয়ে যাও চলে।

    বাল্য মায়ের ছেলে…

Leave A Comment

error: Content is protected !!